এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট 2021

আপনি কি এড দেখে টাকা আয় করতে চান? অথবা এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট নিতে চান? তাহলে আজকের এই ব্লগে এড দেখে আয় করা যায় এমন কতগুলো ওয়েবসাইট নিয়ে। এ নিয়ে আলোচনা করবো, পাশাপাশি বিকাশে পেমেন্ট করে এরকম আলাদা ওয়েবসাইট নিয়েও আলোচনা করব। 

উল্লেখ্য যে বেশিরভাগ ওয়েবসাইটগুলোতে আপনি বিকাশে পেমেন্ট পাবেন না। তবে একটি আলাদা ওয়েবসাইট নিচে উল্লেখ করে রেখেছি, যেখান থেকে আপনি এড দেখে সরাসরি বিকাশে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট ২০২১

এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট 2021

বিভিন্ন এড অথবা এন্টারটেইনমেন্ট ভিডিও দেখে আয় করা কোন কঠিন ব্যাপার নয়। আপনারা হয়তো ক্লিপ ক্লাপস নামক একটি অ্যাপ এর নাম শুনেছেন। এই অ্যাপ্লিকেশনে যখন প্রথম বের হয়, তখন বাংলাদেশে তত জনপ্রিয় ছিল না। পরবর্তীতে যখন কেউ কেউ সেখান থেকে ছোটখাটো ফানি ভিডিও ওয়াচ করতে করতে ডলার পেমেন্ট নিতে শুরু করে। তখন থেকেই এর জনপ্রিয়তা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। বর্তমানে এর ব্যাপক জনপ্রিয়তা আছে।

এখানে আসলেই ফানি ভিডিও দেখে সহজে উপার্জন করা যায়। যারা ওয়াইফাই কানেকশন ব্যাবহার করে, তাদের জন্য এটা সহজলভ্য। আবার যারা এমবি অথবা ইন্টারনেট কানেকশন ব্যাবহার করে কিছু ইনকাম করতে চায়। তাদের, জন্য কোন লাভ হয় না। বরঞ্চ ওয়াচ করতে গিয়ে, ভিডিও দেখতে গিয়ে ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়।

তাহলে আপনি কি এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট নিতে চান? তাহলে নিচের ওয়েবসাইট গুলো দেখুন।

এড দেখে দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট হাতে গোনা 1-2 টা ওয়েব সাইট আছে। যেখানে এড দেখে বিকাশে পেমেন্ট নেওয়া যায়। 

যে সকল বাংলাদেশী পিপিসি সাইট আছে, অর্থাৎ যারা এড দেখার এর বিনিময়ে আপনাকে ইনকাম দিবে, তারা এডভার্টাইজমেন্ট করে উপার্জন করে। অর্থাৎ আপনাদেরকে এড শো করানোর  জেরে রেভিনিউ পায়। তার ক্ষুদ্রাংশ অর্থাৎ কিছু লভ্যাংশ পেমেন্ট হিসেবে আপনাদের দিবে। কাজেই এতে বেশি লাভবান হওয়ার চিন্তা করা ঠিক না। বরঞ্চ শখ বা অবসর সময় হিসেবে আপনি এখানে কিছুমাত্র উপার্জন করতে পারবেন। 

কিন্তু বৈদেশিক পিসিটু বা যে সকল বৈদেশিক সাইট আছে। আপনাকে এড দেখে টাকা ইনকাম দিবে। তাদের ক্ষেত্রে ব্যাপারটা ভিন্ন। তারা বিভিন্ন উপায় রাখে উপার্জন করার। প্রথমত রেফার করার মাধ্যমে উপার্জন।  

আপনি যদি কোনো ভাবে এক হাজার মানুষকে দৈনিক কাজ করার জন্য একটি পিটিসি সাইটে উদ্বুদ্ধ করেন। এবং তাদেরকে রেফার করেন। তবে সেখান থেকে মাসিক 20 থেকে 30 হাজার উপার্জন হবেই হবে। তাছাড়া বৈদেশিক পিপিসি এডভার্টাইজিং সাইটে আয় বৃদ্ধির অনেক উপায় আছে। 

আপনি যত উপার্জন করছেন, সেটা ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পাবে। এজন্য বিশেষ কোন মেম্বারশীপ ক্রয় করে নিতে হবে। যে মেম্বারশিপ ক্রয় করে এড দেখলে পূর্বের তুলনায় 10 গুণ বেশি উপার্জন হবে।

কিন্তু  বিকাশে পেমেন্ট করে এমন এড দেখার ওয়েবসাইট গুলো তেমন সুবিধা দিতে পারে না। কারণ তাদের পরিসর তত বড় নয়। তারা নিজেরাই কোনভাবে উপার্জন করতে পারে। এবং তার থেকে উপার্জন আবার ইউজারদের কেও দিয়ে দিতে হয়।

আর বেশিরভাগ যে সকল বাংলাদেশী সাইট আছে। সেগুলোতে ফেইক হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। অর্থাৎ আপনার টাকা মেরে দেয়ার সম্ভাবনা থাকে।


সহজে এড দেখে টাকা ইনকাম করতে চান?

প্রাথমিক কিছু বৈদেশিক পিটিসি সাইট। যেখান থেকে এড দেখে টাকা আয় করতে পারবেন তা নিচে উল্লেখ করা হলোঃ

ইনবক্স ডলার্স(InboxDollar): ডলার উপার্জন করুন। এখানে বিভিন্ন উপায়ে উপার্জন করা যায়। যখন সাইন আপ করবেন, ইন্সট্যান্টলি 10 ডলার সাইন আপ বোনাস পাবেন।

 SwagBucks: ভিডিও দেখে, জরিপ পূরণ করে, অনলাইন অনলাইনে শপিং করে এবং বিভিন্ন ওয়েব সাইটে সাইন আপ করে উপার্জন করা  যায়। এখানে প্রথম সাইন আপ বোনাস 5 ডলার।

LifePoints: লাইভ পয়েন্টস এটিও একটি জরিপ পূরণ করার সাইট। এখানে প্রতিটি জরিপ পূরণ করতে পারেন। এতে সর্বোচ্চ 10 ডলার বোনাস দেওয়া হয়। লাইফ পয়েন্ট জরিপ পূরণ করার সাইট গুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি উপার্জন দেয়। সর্বোচ্চ একটি জরিপের জন্য 50 ডলার পর্যন্ত উপার্জন করা যায়। এটি আসলেই অনেক বেশি।


জরিপ পূরণ করে তাহলে কি আপনি 10 ডলার বোনাস পেয়ে যাবেন?

না। জরিপ পূরণ করার ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু ব্যতিক্রম  আছে। আপনি বাংলাদেশ থেকে সরাসরি জড়িপ পূরণ করতে গেলে, সরাসরি ব্লক হবেন।

কারণ এই যে বিডি সার্ভার। সেখান থেকে জরিপ গ্রহণ ও ফিল আপ করার কোন উপায় নেই। এরজন্য যারা প্রো সার্ভে ফিলাপ মেম্বার আছেন, তারা সরাসরি বৈদেশিক একটি আইপি অ্যাড্রেস কয়েক বছরের জন্য কিনে নেন। অথবা সরাসরি প্রেমিয়াম ভিপিএন এক্সেস ক্রয় করে নেয়।

এতে করে অন্য দেশের অ্যাক্সেস নিয়ে সরাসরি জরিপ পূরণ করতে পারে। জরিপ পূরণ করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ নামক দেশটি মূলত ব্ল্যাকলিস্টেড হয়ে আছে। সেখান থেকে জরিপ পূরণ করতে গেলে জরিপ পূরণ করার কোন অপশন পাবেন না। 


এছাড়া জরিপ পূরণ করার জন্য নিজের প্রোফাইল অনেক সমৃদ্ধ হতে হয়। একটি বিশেষ আইডিয়া রেখে প্রোফাইলটিকে সম্পাদনা করতে হয়। 

প্রোফাইল এর সাথে মিল রেখে নোটিফিকেশন আসে। অর্থাৎ ততবেশি জরিপ আপনার কাছে আসবে, তা প্রোফাইলের ধরনের উপর নির্ভর করে। এরকম ভালো চিন্তা মাথায় রেখে অনেকেই বাংলাদেশ থেকে 40 হাজার উপার্জন করছে।

প্রত্যেক এর ক্ষেত্রে একটি সাধারণ প্রশ্ন আসে। যে এড দেখে উপার্জন করা,  ইনকাম করা কি আসলে বৈধ? এটিকে কোন বৈধ উপার্জন হিসেবে গণ্য করা যেতে পারে?

এছাড়াও আরো কতগুলো প্রশ্ন আসে। যেমনঃ এড দেখে কেমন উপার্জন করা যেতে পারে? 

তাছাড়া এড দেখে কি আসলেই উপার্জন হয়?


এড দেখে কেমন উপার্জন করা যেতে পারে?

প্রথমত এখানে আপনি রীতিমতো ভালো আয় করতে পারবেন না। খুবই স্বল্প উপার্জন হবে। এটা অনেকাংশে আপনার ভাগ্যের উপর নির্ভর করবে। 

আপনি যদি রীতিমতো ভালো রেফার করতে পারেন, এবং সেই রেফার গুলো যদি নিয়মিত উপার্জন করে, তবে সেখান থেকে ভালো পরিমাণে উপার্জন আসবে। তাছাড়া আয় কোনো সম্ভাবনা নেই। আর এতে উপার্জন করা বৈধ নয় তা নিয়ে অনেক প্রশ্ন আসে। 


এড দেখে টাকা ইনকাম করা কি বৈধ?

যে সকল advertising প্ল্যাটফর্ম আছে। সেগুলো এই পদ্ধতিটিকে বৈধ মনে করে না। তবে কিছু একক ওয়েবসাইট, নিজ থেকেই এ প্লাটফর্মে আসে।নিজস্ব এড শো করানোর জন্য। এবং তাদের যদি লাভ আসে, তবে তারা রীতিমতো তা করতে থাকে। 

তবে সকল ক্ষেত্রেই যে এটি সমানভাবে লাভজনক, তা কিন্তু না। কিছু কিছু বিজনেস টু বিজনেস মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে কাজে আসে। কিন্তু বিজনেস টু কনসিউমারের ক্ষেত্রে খুবই বাজে। 

আর এতেটাকা ইনকাম খুবই স্বল্প পরিমাণে থাকে। এতে করে যে প্লাটফরমটি সেই পে পা ক্লিক এডভার্টাইজিং সিস্টেমটি দাঁড় করিয়েছে, তারাই সর্বাধিক উপার্জন করতে পারে। আর আপনার আমার মতো ইউজার ইনকাম করতে পারে না বলা চলে।


বৈদেশিক ওয়েবসাইটগুলোতে এড দেখে টাকা আয় করাঃ

তাহলে চলুন জেনে নিই ঐ সকল ওয়েবসাইট সম্বন্ধে। যেখানে এড দেখে টাকা উপার্জন করা যায়। তাছাড়াও বিভিন্ন ক্রাইটেরিয়া সম্বন্ধে জেনে নিলে আরো উপকৃত হবেন?


এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট নেয়ার জন্য কি কি লাগবে?

এড দেখে টাকা উপার্জন  করার জন্য শুধুমাত্র ইন্টারনেট কানেকশন লাগবে। এবং একটি কম্পিউটার অথবা মোবাইল থাকলেই চলবে।  

আমি আপনাদের সামনে একটি ওয়েবসাইটের লিস্ট তুলে ধরছি। যাতে বুঝতে সুবিধা হয়। এবং কোথায় ভালো উপার্জন করতে পারবেন তা নির্ণয় করে কাজ শুরু করে দিন।

সবার প্রথমে আমি ইনবক্স ডলার নামক পিপিসি সাইটটিকে রেখেছি। তার কারণ এখানে সবচেয়ে সহজ উপায়ে উপার্জন করা যায়। তাও শুধুমাত্র এড দেখে। এমনকি এখান থেকে গেম খেলে, ওয়েবসাইট সার্চ করে, এমনকি শপিং করে উপার্জন করা যাবে।

ইনবক্স ডলার টাকা সেভ করার জন্য সবচেয়ে ভালো উপায়। যত উপার্জন করবেন সেটি সেখানেই সেভ করে রাখতে পারবেন। তা থেকেও ভালো মুনাফা অর্জন করা যাবে। 

এখানে শুধুমাত্র ওয়াচিং ভিডিও, অর্থাৎ ভিডিও দেখে, ওয়েবসাইট সার্চ করে, এমনকি ছোটখাট গেম খেলে উপার্জন করা যাবে। প্রথমবার এখানে যত উপার্জন করবেন। সে হিসেবে ডিসকাউন্ট নিতে পারবেন।

এটি আন্তর্জাতিক মানের ওয়েব সাইট। সেখানে আপনি বিকাশ, নগদ, মোবাইল ব্যাংকিং পাবেননা পেমেন্ট নেয়ার জন্য। আন্তর্জাতিক মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে উপার্জন নিতে পারবেন। তবে ব্যাংক উইথড্রয়াল বা পেওনার ব্যবহার করতে পারেন। জানলে খুশি হবেন যে, পেওনার সরাসরি বাংলাদেশ থেকে তৈরি করা যায়।

অসুবিধা কি কি?

ইনবক্স ডলারে বাংলাদেশের জন্য বিশাল অসুবিধা আছে। প্রথমত প্রতি এড এ ক্লিক করলে প্রচুর কম পাবেন। তাহলে প্রশ্ন হল এখান থেকে উপার্জন করবেন কী করে?

বাংলাদেশের জন্য উপার্জন করার কিছু উপায় আছে। যেমন, প্রথমত প্রো মেম্বারশিপ কিনতে হবে। যাতে করে এড এ ক্লিক করলে বেশি উপার্জন করতে পারেন। 

দ্বিতীয়তঃ রেফার করতে হবে। কারণ আমরা জানি যে, কোনো পিপিসি ওয়েবসাইটে রেফার করে উপার্জন করাই প্রধান মাধ্যম। কারণ অন্যান্য যেসকল উপায় আছে সেগুলোতে খুব কম উপার্জন হয়। যেটা হাতের নাগালের বাইরে। 

রেফার করাকে আপনি এফিলিয়েট লিংকিং এর সাথে তুলনা করতে পারবেন। বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া সাইটে, ওয়েবসাইট ও নিজস্ব ব্লগ থাকলে সেখানেও কিছু কিছু প্রমোশন নিতে পারেন। কারণ রেফার করে প্রচুর ইনকাম করতে পারবেন।

সাইটগুলোর রিভিউ জেনে নিইঃ 


১। InboxDollars: ডলার আয় করুন।

বর্তমানে এড দেখে আয় করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় উপায় হলো। ইনবক্সডলারে কাজ করা। এটি একটি ক্যাশব্যাক প্রোগ্রাম লঞ্চ করেছে। যেখানে প্রতিনিয়ত ক্যাশব্যাক অফার পাবেন। মাঝেমধ্যেই নোটিফিকেশন আকারে আসবে। 

সেখান থেকে আপনি কিছু ডলার ক্লেইম করতে পারবেন। তার জন্য আপনার প্রতিদিনের একটিভিটি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

অপরদিকে আপনি এড দেখে এমনকি ভিডিও দেখে ডেইলি উপার্জন করতে পারবেন। যদি উপার্জনের পরিমাণ কম, তবে প্রো মেম্বারশিপ নিয়ে নিতে পারলে তার পরিমাণ দ্বিগুণ-তিনগুণ এমনকি দশগুণ হয়ে যাবে। 

পড়ুনঃ 

তাছাড়া উপার্জন করার আরো কতগুলো উপায় মধ্যে আছে, গেম খেলে উপার্জন করা। অন্যান্য ওয়েবসাইটের সাইনআপ করে, রিসার্চ করে ইনকাম করা যায়।

অন্যান্য ওয়েবসাইটের সাথে ইনবক্স ডলারের কিছু ব্যতিক্রম রয়েছে। পার্থক্য আছে। যেমন ইনবক্স ডলারে আপনি আসলে রিয়াল মানি পেমেন্ট নিতে পারবেন।

এখানে কোন প্রকারের পয়েন্ট অথবা টোকেন জমা করতে হয় না। সরাসরি টাকা আপনার একাউন্টে জমা হতে থাকবে। তাছাড়া বিশ্বস্ততার দিক থেকে এটি অনেক ঊর্ধ্বে। কারণ এটা কোন ফেক ওয়েবসাইট নয়। এখানে কোন স্পেমিং নেই। 

বাংলাদেশ থেকে পেপাল একাউন্ট অনেক ক্ষেত্রে তৈরি করায় সীমাবদ্ধতা আছে। সে ক্ষেত্রে যদি পেপাল না থাকে, পেওনারের মাধ্যমে আপনি উপার্জন পেমেন্ট নিতে পারবেন। উইথড্র করতে পারবেন।

 

ইনবক্স ডলারের সবচেয়ে ভালো সুবিধাটি কি?

এখানে সবচেয়ে ভালো সুবিধা হল আপনি 5 ডলার সাইন আপ বোনাস কালেক্ট করতে পারবেন। এখানে রেজিস্ট্রেশন প্রসেস সম্পূর্ণ ফ্রি। একজন ফ্রি মেম্বার সেখানে উপার্জন করা যায়।

তবে এ কোম্পানিটি প্রতি 300 ডলার পেমেন্ট আপনার কাছ থেকে 3 ডলার ফি চার্জ করবে। যখন আপনি পেমেন্ট নেবেন তখন। তবে ইনবক্স ডলারে কাজ করার জন্য ভিপিএন ব্যবহার করতে হয়।

Click To Go


২। Swagbucks: এড দেখে, জরিপ পূরণ করে আয়।

সোয়াগ বাক্স একটি সহজ উপায়ে অনলাইনে আয় করার জন্য। যারা বাংলাদেশ থেকে জরিপ করুন করে আয় করছে, তারা সোয়াগবাক্স ও লাইফপয়েন্ট এসব ওয়েবসাইটে নিয়মিত কাজ করে। এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট সম্পুর্ণ জানুন

এটি সর্বোচ্চ পে করার সাইট গুলোর মধ্যে অন্যতম। এখান থেকে এক্সট্রা বাক নিজের ওয়ালেটে নেয়া যায়।  এই এসবি(SB) পয়েন্ট ব্যবহার করে গিফট কার্ড, পেপাল ক্যাশ অর্থাৎ ডিরেক্টলি মানি পেমেন্ট নেওয়া যাবে।

প্রথমত সোয়াগ বাকে রেজিস্ট্রেশন প্রসেসটি সম্পূর্ণ ফ্রি। আপনি সম্পূর্ণ ফ্রি তে রেজিস্ট্রেশন করে  উপার্জন করতে পারবেন। তবে এখানে জরিপ পূরণ করার ক্ষেত্রে বিশেষ সীমাবদ্ধতা আছে।

জরিপ পূরণ করে আয় করার রিকোয়ারমেন্টঃ 

আপনাকে কোনো একটি আইপি অ্যাড্রেস কিনতে হবে। যেটি বাংলাদেশ থেকে 1000 থেকে 2000 টাকার মধ্যে কিনে নেয়া যায়। এক বছরের জন্য  ব্যবহার করতে হবে।

এবং একটি জরিপ পূরণ করে দৈনিক প্রতিদিনই 10 ডলার পর্যন্ত উপার্জন করা যাবে। যদি বেশি পরিশ্রম করেন, তাহলে দৈনিক সহজেই 100 ডলার উপার্জন পর্যন্ত করা যাবে। এখানে প্রথম সাইন আপ করলে 5 ডলার ওয়েলকাম বোনাস পাওয়া যায়।

ভিডিও দেখে উপার্জন করার ক্ষেত্রে বেশি উপার্জন করা যায় না। কিছু ক্যাটাগরির বিশেষ ভিডিও আছে। যেমনঃ খেলাধুলা, ফ্যাশন, স্বাস্থ্য খাদ্য এসব নিয়ে বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিডিও আছে। সেগুলোতে বিভিন্ন এডভার্টাইজমেন্ট করে, এড দেখে সেগুলো দেখে উপার্জন হয়।

সোয়াগবাক্সে প্রতিটি ক্যাটাগরিতে 15 থেকে 30 এর মত ভিডিও শো করায়। এবং সেই ভিডিওগুলো দেখে উপার্জন করা যাবে।

এ কোম্পানিটি আপনাকে সোয়াগ বাটন( SwagButton) ডাউনলোড করতে দিবে। বিভিন্ন ওয়েবসাইটের সবচেয়ে ভালো ডিল ও অফার গুলো পূরণ করতে দিবে। তার পরিবর্তে আপনাকে কিছু টেস্ট দিবে, অফার দিবে। 

এখানে পয়েন্ট প্রোভাইড করা হয়। যাকে সোয়াগ বাক পয়েন্ট বলে। সংক্ষেপে এসবি পয়েন্ট। এই পয়েন্টস রেডিম করে যেকোনো ক্যাশ নিতে পারবেন। যদি গুগল প্লে ব্যালেন্স নিতে চান, অর্থাৎ গুগোল গিফট কার্ড নিতে চান। তাহলে সেটি ক্রয় করতে পারবেন।

এখান থেকে ক্রয় করতে হবেনা। আপনার পয়েন্ট রিডিম করেই নিতে পারবেন।

Click To Go


৩। MyPoints

 মাই পয়েন্টে একটি রিওয়ার্ড প্রোগ্রাম। যেখানে ভিডিও দেখে, এমন কি এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট করা যায়। মাই পয়েন্ট বেশিরভাগ ক্ষেত্রে United States বাসীদের জন্য। তবে বাংলাদেশ থেকে আয় করা যায় ভিপিএন অথবা ভিন্ন আইপি এড্রেস ব্যবহার করে।

মাই পয়েন্ট ব্যবহার করা সহজ। এখানে কিছু প্রোগ্রাম আছে। যেখান থেকে আপনি উপার্জন করতে পারবেন। এবং সেটি প্রতিনিয়ত পয়েন্ট উপার্জন করে গিফট কার্ড রেডিম করতে পারবেন। এখানে আয় করার কিছু বিখ্যাত উপায় হলোঃ

এড দেখে আয় করা। ওয়েবসাইট রিসার্চ করা। অর্থাৎ সার্চ করা।  আবার গেম খেলা আর নিজের অপেনিয়ন শেয়ার করা। জরিপ পূরণ করা, অনলাইনে শপিং করা। এখান থেকে আপনি পেপাল ক্যাশ, গিফট কার্ড নিতে পারবেন।

পড়ুনঃ

ভালো সুবিধা কি?

এখানে প্রথমবার ওয়েলকাম বোনাস হল 10 ডলার। রেজিস্ট্রেশন ফ্রি। এবং খুব সহজে রেজিস্ট্রেশন করে সাইন ইন করতে পারবেন।

আপনি ওয়েবসাইটটিকে চয়েজ করতে পারেন যদি আপনি ভিসা কার্ড, পেপাল,  গুগোল গিফট কার্ড এর মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে চান তো।

তাদের নিজস্ব সার্ভিস আছে। সেখান থেকে যদি মেম্বাররা কোন কিছু ক্রয় করে, তাহলে সেখানে 40 ভাগ পর্যন্ত ডিসকাউন্ট পাওয়া যাবে।

পড়ুনঃ


Click To Go


৪। SlideJoy

যদি আপনি মোবাইল ফোনে যথেষ্ট পরিমাণ সময় ব্যয় করেন। তাহলে SlideJoy হতে পারে আপনার আয় করার একমাত্র সমাধান।

SlideJoy এমন একটি ওয়েবসাইট, কিংবা অ্যাপ্লিকেশন। যেটি কেবলমাত্র স্মার্টফোন ডিভাইসের মাধ্যমে অ্যাক্সেস করা যায়।

এন্ড্রয়েড ফোনে নিজস্ব এপলিকেশন অ্যাভেলেবল আছে। এই অ্যাপটি ইনস্টল করার পর আপনি এখানে বিভিন্ন কন্টেন্ট রিলেটেড কিছু ইন্টারেস্টেড দেখবেন। যে গুলো ভিন্ন-ভিন্ন ক্যাটাগরিতে সাজানো। লেটেস্ট নিউজ এবং  বিভিন্ন ওয়েবসাইট ব্রাউজ করে গুগল প্লে ক্রেডিট রিডিম করা যায়।

এখানে প্রতিটি কনটেন্ট আপনি দেখতে পারবেন। যখন আপনি টি ইন্সটল করা সম্পন্ন করবেন। এখানে ডানদিকে সোয়াইপ করে এড পাল্টানো যায়।  ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করাও লগইন করা যায়। এবং এটি সম্পূর্ণ সিকিউর। 

এর বিশেষ কিছু অসুবিধা আছেঃ 

এটি আপনার ফোন লক এর ভেতর দিয়ে অটোমেটিক্যালি কাজ করতে পারে। আপনার ব্যাকগ্রাউন্ডে বিভিন্ন নোটিফিকেশন নিয়ে আসবে। এতে করে আপনার ব্যাটারি চার্জ দ্রুত কমে যাবে। 

এবং আপনার ফোনে অসুবিধা করতে পারে। বিশেষ করে যাদের ফোনের পারফরম্যান্স ভালো নয়, তাদের ক্ষেত্রে লেগ থাকে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে হ্যাং করতে পারে। 

যেহেতু এটি আপনার ওয়েবসাইটে ব্যাকগ্রাউন্ডে বিভিন্ন নোটিফিকেশন নিয়ে আসবে। বিভিন্ন কাজ মিটে গেলে সমাধান করবে। তবে এই অ্যাপ্লিকেশনটি কোন ভাইরাস জনিত নয়। এবং সম্পূর্ণ সিকিউর।

Click To Go


৫। Success Bux

যদি আপনি সবচেয়ে ভালো ওয়েবসাইট নিয়ে আলোচনা করতে চান, যেখান থেকে ভালো পরিমাণে এড দেখে টাকা আয় করা যায়। তবে success bux একটি ভালো এডভার্টাইজিং প্ল্যাটফর্ম।

এখানে বিভিন্ন অনলাইন অ্যাক্টিভিটি আছে। যার মধ্যে আছে জরিপ পূরণ করা, ভিডিও দেখা, টাস্ক পুরন করে উপার্জন ইত্যাদি সম্পন্ন হয়।

এখানে অডিও ক্লিপ শুনে, বিভিন্ন অফার রিডিম করে, বিভিন্ন প্রোডাক্ট টেস্ট করে এমনকি ওয়েবসাইট ব্রাউজ করে, উপার্জন করা যায়। এখানে রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ ফ্রি। 

আরো সহজ করে দিয়েছে। এখানেকোনোরকম টাকা ইনভেস্ট করে উপার্জন করা লাগে না। এখান থেকেও রীতিমতো উপার্জন করা যায়। বিশেষ করে রেফার করে বেশি উপার্জন করা সম্ভব।

এখানে মিনিমাম পেআউট এর অ্যামাউন্ট হলো 1 ডলার।  এদের নিজস্ব পেমেন্ট প্রসেসর আছে। আপনি পেমেন্ট এর জন্য আবেদন করলে সাথে সাথে উইথড্র করিয়ে দিবে।

Click To go


৬। QuickRewards

পেপাল অথবা পেওনারের মাধ্যমে যদি কেউ ডলার নিতে চান।এড দেখে। তাহলে সবচেয়ে ভালো হবে Quick Rewards। এখানে কুইক ক্যাশ আউট করা যায়। এখানে 5 ডলার হলেই তা পেপাল ক্যাশ অথবা পেওনারের মাধ্যমে ক্যাশ আউট করা যায়। প্রতিটি পেপ্যাল পেমেন্ট পেমেন্ট মূলত 72 ঘণ্টার মধ্যে সম্পন্ন হয়।

কুইক রিওয়ার্ডস আপনাকে ভালো কাস্টমার সার্ভিস প্রদান করবে। এমনকি এখান থেকে এড দেখে, ভিডিও দেখে, জরিপ পূরণ করে উপার্জন করা যাবে।

বিশেষ এপ্লিকেশন ইন্সটল করতে বলবে, কোন ওয়েবসাইট ব্রাউজ করতে বলবে, অথবা একটি অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে বলবে। এতে করে উপার্জন করতে পারবেন। এখানে কিছু প্রিমিয়াম ইমেইল আসে। যেগুলো ইমেইল মার্কেটিং এর অন্তর্ভুক্ত। সেই মেইল গুলো পরে আপনি উপার্জন করতে পারবেন। তবে উপার্জনের পরিমাণ খুবই কম। 

বেশীর ভাগ বৈদেশিক ওয়েবসাইটগুলোতে বাংলাদেশ থেকে গেলে উপার্জন কম হয়। সেখান থেকে একজন বাংলাদেশের উপার্জন করার জন্য বিশেষ করে প্রেমিয়াম মেম্বারশিপ কিনতে হয়। অথবা কোন একটি আইপি অ্যাড্রেস ক্রয় করে সেখানে উপার্জন করতে হয়।

যখন মনে হবে যে এটি আপনার ক্যাশ আউট এর উপযুক্ত সময়। অর্থাৎ পাঁচতলার সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে। তখন পেপাল ক্যাশ বা গুগোল গিফট কার্ড এর মাধ্যমে  উপার্জন পেমেন্ট হিসেবে নিতে পারবেন।

এর বিশেষ রয়ালটি প্রোগ্রাম আছে। যা মূলত ইউনাইটেড স্টেট অফ আমেরিকা এবং যুক্তরাজ্য কানাডার জন্য এভেইলেবল।

Click To Go


৭। You-Cubez

এড দেখে অথবা ভিডিও দেখে উপার্জন করার জন্য ভালো সাইট খুঁজলে You-Cubez সবচেয়ে ভালো হবে। You-Cubez এডভার্টাইজিং এজেন্সির একটি বিরাট রোল পালন করে। এর মানে এখানে যে সে উপার্জন করবেন, তার বেশিরভাগ তাদের নিজস্ব প্রিমিয়াম ব্যবসায়ের এড থেকে।

এখানে এড দেখে টাকা আয় করতে পারবেন। পাশাপাশি অনলাইনে টাস্ক, জরিপ পূরণ করে উপার্জন করা যাবে।এড দেখার জন্য অর্থাৎ ভিডিও দেখার জন্য বিভিন্ন কমার্শিয়াল ভিডিও আছে। বিভিন্ন কমার্শিয়াল এডও আছে। যেগুলো বিভিন্ন বিজনেস, বিভিন্ন ক্যাটাগরির ওয়েব সাইট গুলোতে ক্লিক করে উপার্জন করে, দেখে উপার্জন করা যায়।

এখানে মিনিমাম পেমেন্ট কত, তা আপনার মেম্বারশিপ স্ট্যাটাস এর উপর নির্ভর করবে। এটা 2 ইউরো থেকে 8 ইউরো এর মধ্যে হতে পারে। অর্থাৎ 2 ডলার থেকে শুরু করে 10 ডলার পর্যন্ত হতে পারে মিনিমাম পে আউট।

এ কম্পানির আছে খুব ভালো রেফার করার প্রোগ্রাম। এখানে প্রতিটি রেফারের 15 ভাগ পর্যন্ত উপার্জন করা যায়। 15 পর্যন্ত কমিশন নেয়া যায়।

Click To Go


৮। AppTrailers 

একটি জনপ্রিয় অ্যাপ। ভিডিও দেখে টাকা ইনকাম করার জন্য। এখানে এড দেখে টাকা আয় করা যায়। এখানে কমার্শিয়াল মুভির ট্রেইলার, ডেইলি কুইজ খেলে, গেম খেলে উপার্জন করা যাবে। 

যদি আপনি এখানে বোরড হয়ে যান, তাহলে একটু Twice এর বিভিন্ন গেমিং ভিডিও দেখেও উপার্জন করতে পারবেন। বিভিন্ন গসিপ, সেলিব্রেটি গসিপ, মুভি ট্রেইলার, গেম ট্রেইলার দেখে  উপার্জন করা যায়। একইভাবে উপভোগ করা যায়।

প্রতিটি কার্যক্রম কমপ্লিট করে নেওয়ার পর আপনি এখানে পয়েন্ট উপার্জন করতে পারবেন। সে পয়েন্ট ব্যবহারে পেপাল ক্যাশ কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

পড়ুনঃ


এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট করার ওয়েবসাইট

বিকাশে পেমেন্ট নেবেন এড দেখে টাকা আয় করার এরকম ওয়েব সাইটের মধ্যে আছে আর্নিং পয়েন্ট ক্লাব। 

পূর্বের থেকে একটু ভালো হয়েছে। যদিও এখানে আয় রীতিমতো আয় প্রচুর কম হয়। এবং সেখানে 20 টাকা উপার্জন করতে গিয়ে অনেক পরিশ্রম করতে হয়। যেটা আসলে অনেক বেশি। 

আর্নিং পয়েন্ট ক্লাবে পয়েন্ট পূরণ করতে হয়। কিছু ক্ষেত্রে সেটা হতে পারে অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করা। একটি নিউজ শো করা। ওয়েব সার্চ করা। বা দুই মিনিট পরপর একটি ভিডিও দেখা। এভাবে দুই টাকা, এক টাকা জমিয়ে জমিয়ে রাখতে পারলে মোবাইলে রিচার্জ ২০৳ নেয়া যায়।

কোনভাবেই ৫০৳ বিকাশে পেমেন্ট করে। এটি এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট ২০২১ করার ভাল ওয়েবসাইট হতে পারে না।  

তার জন্য আপনি চাইলে একটি সাইটকে অপশনাল হিসেবে নিতে পারেন। যার মধ্যে আছে গ্রাথোর( Grathor)। এখানে ছোটখাটো আড়াইশো থেকে 300 ওয়ার্ড এর মধ্যে কিছু লিখে পোস্ট করলে তার বিনিময়ে ৮ টাকা করে উপার্জন করা যায়।

এবং এটির রেফারর লিংক  পরবর্তীতে বিভিন্ন পেইজে শেয়ার করলে, ভালো ফেসবুক পেজে লিংক এড করতে পারলে। সেখান থেকে তার হিসাব অনুযায়ী সর্বোচ্চ 100 টাকা পর্যন্ত দেয়া হয়। এখানে প্রতিটি পোস্ট এর পেমেন্ট আপনার পোষ্টের উপর নির্ভর করবে। 

যত ভাল পোস্ট লিখতে পারবেন, তার বিনিময়ে আপনাকে সর্বনিম্ন আট টাকা থেকে শুরু করে একশ টাকা পর্যন্ত উপার্জন দেয়া হবে। সবশেষে 800 টাকা হলে আপনি একটা বিকাশ পেমেন্ট নিতে পারবেন। এখানে প্রো মেম্বারশিপ নিলে ইনকাম আরো ভালো হয়।


পরিশেষেঃ

বলে রাখা ভাল, আপনি এড দেখে কখনো বড়লোক হতে পারবেননা। এর দেখে আপনি ভালো উপার্জন করতে পারবেন না। এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট কোন প্যাসিভ ইনকাম এর মত না 

শখের বশে এড দেখে কিছু সেন্ট উপার্জন করতে চাইলে আপনার জন্য এটি সবচেয়ে ভালো। তাছাড়া এড দেখে টাকা আয় করার কথা চিন্তা করা উচিত না।

চাইলে ইউটিউব থেকে উপার্জন করতে পারেন। অর্থাৎ এমনকি ব্লগিং করে উপার্জন করা যায়। এছাড়া ফেসবুক থেকে উপার্জন করা যায়। সেদিকে নজর দিলে আপনি নিয়মিত উপার্জন করে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন। ইনকামের সোর্স হিসেবে রাখতে পারবেন। 

কিন্তু এড দেখে টাকা উপার্জন কোন ভালো সমাধান হতে পারে না।

আরও পড়ুনঃ


Naimul Islam

নাইমুল ইসলাম Expert Bangladesh এর Founder এবং Owner। সে অবসর সময়ে ব্লগিং ও লেখালেখি করতে ভালোবাসে। একইভাবে অনলাইনে নতুন কিছু শেখা তার প্রধান শখ।

4 Comments

কমেন্ট করার মিনতি করছি। আমরা আপনার কমেন্টকে যথেস্ট মূল্য প্রদান করি। এটি আমাদের সার্ভিসের অংশ।

তবে কোনো ওয়েবসাইট লিংক প্রকাশ না করার অনুরোধ রইল।

  1. খুবই সুন্দর একটি আর্টিকেল। অনেক সাইড সম্পর্কে জানতে পারলাম

    ReplyDelete
    Replies
    1. আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

      Delete
  2. অনেক ভালো লিখেছো।
    অনেক অনেক ইনফরমেশন ছিলো পোস্টটিতে।


    এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট এই কিওয়ার্ড এর অনেক চাহিদা।
    আর এতে তোমার পোস্ট ১ নম্বর র‍্যাংক পেয়েছে। Congratulation......

    ReplyDelete
    Replies
    1. তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ, স্বপ্নীল😘

      Delete
Previous Post Next Post