১৫০০০ টাকার মধ্যে ভালো মোবাইল ফোন ২০২১

15000 টাকার মধ্যে ভালো ফোন 2021

আজকে আপনাদের মাঝে ১৫০০০ টাকার মধ্যে ভালো  ফোন ২০২১ নিয়ে আলোচনা করবো। অনেক রিসার্চ করে তবেই সেরা ফোনগুলোকে এখানে নিয়ে আসলাম। এখানে রিভিউ করা শীর্ষস্থানীয় ফোনগুলোকে ক্রয় করার জন্য বাছাই করবেন আশা রাখি। চলুন বিস্তারিত শুরু করা যাক, ১৫ হাজার টাকার মধ্যে স্মার্টফোন। 

১৫০০০ টাকার মধ্যে ভালো ফোন ২০২১


১৫ হাজার টাকার মধ্যে স্মার্টফোনগুলোর তালিকা কিভাবে প্রস্তুত করা হয়েছে?

বর্তমানে ১৫,০০০ টাকার ভিতরে দারুন সব ফোন পাওয়া যাচ্ছে। আপনাদের অনেকেই চাচ্ছেন, ভালো পারফরম্যান্স পাওয়া যায় এমন সব ফোন। 

যেমন ধরুন, ভালো ব্র‍্যান্ডেড ও ফিচারস যুক্ত প্রসেসর না হলেই, বেশিরভাগ ১-২ মাস পর ফোন হ্যাং, ল্যাগ  করা শুরু করে। আবার বর্তমানে প্রযুক্তির বিকাশে ভারী এপ্স ও গেমস খেলার জন্য র‍্যাম ও বেশি স্টোরেজেরও প্রয়োজন আছে। সব মিলিয়ে যার যার চাহিদা অনুযায়ী মোবাইল গুলোকে র‍্যাংক করালাম।

প্রথমেই বলে রাখি, আমরা সবার আগে পারফরম্যান্স ও ফোন কোয়ালিটিতে নজর দিয়েছি৷ তারপর র‍্যাম ও ইন্টারন্যাল স্টোরেজের দিকটা যাচাই করেছি। পরবর্তীতে নজর দিয়েছি জিপিইউ ও বিশেষ বিশেষ সফটওয়্যার ফিচারস। তারপর খেয়ালে রেখেছি ফোনের ডিজাইন। পরবর্তীতে ব্যাটারি ও ফার্স্ট চার্জিং। সব মিলিয়ে যথোপযোগী র‍্যাংক করাতে সক্ষম হয়েছে।


10. Xiaomi Redmi 9

(4/128 GB)

মূল্যঃ ১৪,৯৯৯ টাকা (2nd Varient)।

Xiaomi Redmi 9 তে আছে Dual Camera ভার্সন। এই স্মার্টফোনের আছে 6.53 ইঞ্চির HD+ IPS LCD স্ক্রীন। আরো আছে একটি Full-View waterdrop ডিজাইন। 

ফোনটির ব্যাক ক্যামেরা dual 13+2 MP, আর ক্যামেরার সাথে আছে PDAF, LED flash, depth sensor, HDR ইত্যাদি সুবিধা।  Full HD তে ভিডিও রেকর্ড করারও সুযোগ আছে। এ ফোনের সামনের সেলফি ক্যামেরাটি 5 MP। 

Redmi 9 Dual Camera ফোনটিতে আছে 5000 mAh এর ব্যাটারি। পাশাপাশি 10W এর ফার্স্ট চার্জিং সুবিধা। এতে আছে 4 GB র‍্যাম।

এ মোবাইলে আছে 2.3 GHz octa-core CPU এবং PowerVR GE8320 GPU। যেটি একটি Mediatek Helio G30 (12 nm) দ্বারা পরিচালিত। এ প্রাইসে আরো ভালো ফিচারস যোগ করা যেতো।

ফোনটির প্রথম রিলিজ সেপ্টেম্বর,২০২০৷ তাই এতে দাম অনুযায়ী ভালো ফিচার্স কম। এ ফোনটির ১৪৯৯৯ টাকার এডিশনে 128 GB ইন্টারন্যাল স্টোরেজ পেয়ে যাবেন। এ ফোনের পিছনে ফিংগার প্রিন্ট সেন্সরও পাবেন।

অন্যান্য সুবিধাঃ 

FM Radio, Dual SIM, face unlock, splash resistant body ইত্যাদি।

ভালো দিকঃ    

✔ দারুন ডিজাইন।    

✔ সন্তোষজনক 6.53″ HD+ ডিসপ্লে।    

✔ Splash-proof বডি।    

✔ ক্যামেরা যথেস্ট আছে। যদিও এ বাজেটে এরকম ক্যামেরার ফোনের কোনো প্রয়োজন দেখি না।    

✔ Helio G35 chipset ও 4 GB RAM পারফরম্যান্স কোনোভাবে মানা যায়।

✔ 5000 mAh এর বড় ব্যাটারি    

খারাপ দিকঃ

✘  এ দামে সাধারণ মানের ফোন।

✘ কম সুযোগ সুবিধা ও ২০২০ এর ফোন।

পার্সোনাল রেটিংস - 7.2/ 10

কারা ফোনটি নিবেন?(১৫০০০ টাকার মধ্যে ভালো ফোন ২০২১)

১) যারা রেডমি ভক্ত।

২) যাদের গেম খেলার শখ নাই, কিন্তু বেশি স্টোরেজ দরকার তাদের।

১৫০০০ টাকার মধ্যে ভালো ফোন ২০২১ সম্পুর্ণ জানুন।

৩) কেনার দরকার নাই। এই সাজেশনটা নেন।


9. Realme C15 Qualcomm Edition

(4/128 GB)

মূল্যঃ ১৪,৪৯০।

Realme C15 Qualcomm Edition ফোনটিতে আছে 6.5 ইঞ্চির HD+ IPS LCD স্ক্রিন। যেটি একটি আলাদা Gorilla Glass দ্বারা সুরক্ষিত। সকল মোবাইলেই আলাদা Gorilla Glass লাগিয়ে নিবেন। বিশেষ করে Gaming Gorilla।  

এখানে আছে একটি Full-view minimal notch এর ডিজাইন। পিছনে ব্যাক ক্যামেরা কোয়াড 13+8+2+2 MP সাথে আছে PDAF, LED flash, depth sensor, ultrawide ইত্যাদি। এ মোবাইলে Full HD তে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। কিন্তু ক্যামেরা ভালো নেই। 

এ ফোনের সামনের সেলফি ক্যামেরা 8 MP এর। Realme C15 Qualcomm Edition ফোনে 6000 mAh এর বিশাল ব্যাটারি এবং 18W fast charging সুবিধা পাবেন।

 এ ফোনে পাবেন  4 GB RAM।  এবং 1.8 GHz octa-core প্রসেসর।  Adreno 610 GPU।

যা Qualcomm এর Snapdragon 460 (11 nm) chipset দ্বারা পরিচালিত। এ চিপসেটে পারফরম্যান্স মুটামুটি। এখানে পাবেন 128 GB internal storage। এ ফোনে আরো আছে back-mounted fingerprint sensor। 

অন্যান্য সুবিধাঃ ১৫০০০ টাকার মধ্যে ভালো ফোন ২০২১

Dual SIM, face unlock ইত্যাদি।

ভালো দিকঃ    

✔ HD+ ডিসপ্লে, সাথে আছে Gorilla Glass protection    

✔  Qualcomm Snapdragon 460 chipset এর সাথে সন্তোষজনক পারফরম্যান্স, কিন্তু আহামরি কিছু না।    

✔ 6000 mAh এর ব্যাটারি। সাথে 18W charging।

✔ Android 10।

খারাপ দিকঃ

✘ USB Type-C এর ক্যাবল বা চার্জার হয় না।

✘ ক্যামেরার অবস্থা তেমন ভালো না।    

পার্সোনাল রেটিংস - 7.5/10।

এ ফোনটি কারা নিবেনঃ

১) যারা Snapdragon প্রসেসরে বিশ্বাসী।

২) ভালো স্টোরেজ ও ব্যাটারি আছে।

৩) রিয়েলমি ভক্তরা কিনতে পারেন। যদিও রিয়েলমি তেমন জনপ্রিয় না। আমরাই লাফাইতেছি।


7. Xiaomi Poco M2 Reloaded

(4/64 GB)

Xiaomi Poco M2 Reloaded ফোনটিতে আছে 6.53 ইঞ্চির Full HD+ IPS LCD স্ক্রিন। Poco M2 তে নির্দিষ্ট বাগ রিকভার করে Reloaded ভার্সন আসে।  এ ডিভাইসটির সামনের অংশ একটি  3G Gorilla Glass দ্বারা সুরক্ষিত। 

ফোনটির ব্যাক ক্যামেরা কোয়াড 13+8+5+2 MP  সাথে আছে PDAF, f/1.8 aperture, LED flash, macro camera, HDR, depth sensor ইত্যাদি ফিচার। এ বাজেটে ক্যামেরা ভালো হয় নি।

সামনের সেলফি ক্যামেরাটি  8 MP। Poco M2 Reloaded  এ আছে 5000 মিলি এম্পিয়ার এর battery। সাথে আছে  18W Fast Charging support।  এ ফোনে আছে 4 GB RAM।

পড়ুনঃ

আরো আছে 2.0 GHz octa-core CPU এবং Mali-G52 MC2 GPU। বেশিরভাগ 15k বাজেটের ফোনের এই GPU কমন।  এটি 12 nm এর MediaTek Helio G80 chipset দ্বারা পরিচালিত।  ১৩,০০০- ১৪,০০০ টাকার নারজো সিরিজের ফোনে  হেলিও জি৮৫ চিপসেট থাকে৷ 

সেখানে পকো এম২ থেকে এটি আশা করা যায় না। কারণ আমরা জানি, পকো কম দামে বেশি ফিচার দিয়ে আসতেছে। এ ফোনে পাবেন 64 GB এর ইন্টারন্যাল স্টোরেজ। একটি side-mounted fingerprint sensor ও আছে এ ফোনে।

অন্যান্য সুবিধাঃ

wireless FM Radio, USB type-C, Dual SIM, Infrared, Face Unlock ইত্যাদি।

ভালো দিকঃ

✔ Full HD+ ডিসপ্লে,    

✔ Gorilla Glass 3 প্রোটেকশন।    

✔ Water-repellent বডি। এসব ফিচার যদিও এ ফোনে ভালোই দিয়েছে।    

✔ 5000 mAh এর বড় ব্যাটারি। 18W fast charging সাপোর্ট যদিও আছে। কিন্তু তারা নিজ থেকে 10W চার্জার ধরিয়ে দেয়।

    

✔ মুটামুটি performance,  Helio G80 চিপসেট।

খারাপ দিকঃ

✘ 10W Charger, এটা আসলে মানা যায় না।

✘  এ camera quality POCO থেকে আমরা আশা করি নি।

পার্সোনাল রেটিংস - 7.5 /10 

এ ফোনটি কারা নিবেন?

১) দেখুন, একটা মিস্টেক থাকতে পারে। এই ফোনটি কিন্তু 6/64 GB ভ্যারিয়েন্টে আছে। প্রাইসও শুনলাম ১৫,০০০ এই। সেদিক থেকে কিনলে সমস্যা নাই।

২) অনেকেই দেখছি এ ফোনটিই কিনতেছে। পকো যারা পছন্দ করেন, তারা কিনলে কিনতে পারেন। 

৩) তবে ফোনটিই দ্রুত গরম হয়। আমার পাড়ার এক ছেলে কিনলো। দেখা যায়, তার ফোন দ্রুত  Heat হয়।


6. Samsung Galaxy A12

(4/64 GB)

মূল্যঃ ১৪,৯৯৯ টাকা।

রিভিউঃ

Samsung Galaxy A12 ফোনটিতে আছে 6.5 ইঞ্চির PLS IPS HD+ স্ক্রিন। এখানে আছে একটি Full-View waterdrop ডিজাইন। এ ফোনে মোট 4টি ব্যাক ক্যামেরা আইটেম। 

যথাক্রমে 48+5+2+2 MP সাথে আছে Autofocus, LED flash, depth sensor, dedicated macro camera ইত্যাদি।  Full HD তে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। 

স্যামসাংয়ের সামনের ক্যামেরা 8 MP এর। Galaxy A12 ফোনে আছে 5000 mAh এর Big Battery। সাথে আছে 15W এর ফার্স্ট চার্জিং সুবিধা। 

এ ফোনের ১৪৯৯৯ টাকার ভ্যারিয়েন্টে পাবেন 4 GB RAM। এ ফোনের প্রসেসর 2.35 GHz এর octa-core CPU। এবং PowerVR GE8320 GPU।  Mediatek Helio P35 (12nm) chipset এর চিপসেট। 

এ ফোনে পাবেন 64 GB ইন্টারন্যাল স্টোরেজ। এ ফোনে  side-mounted ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর আছে। 

অন্যান্য সুবিধাঃ FM Radio, Dual SIM, face unlock, Android 10 ইত্যাদি।

ভালো দিকঃ

✔ স্ক্রীনের এর দৈর্ঘ্য ঠিকই আছে। 

✔ ক্যামেরা অসাধারণ। 

✔ Android 10    

✔ ব্যাটারি দ্রুত ফুরাবে না। আরো আছে 15W Fast Charging    ।

✔ স্যামসাং ফোন কিন্তু অনেক দিন টিকবে।

✔ side-mounted  ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর।     

খারাপ দিকঃ

✘ Performance আরো ভালো হতে পারত।

✘ এ বাজেটে কোনো ডিসপ্লে প্রোটেকশন নাই।

পার্সোনাল রেটিংস - 7.5/ 10

এ ফোনটি কারা নিবেন?

১) Samsung Lovers দের জন্য। 

২)  স্যামসাংয়ের ডিউরেবিলিটি নিয়ে প্রশ্নই আসে না।

৩) এ ফোনের পারফরম্যান্স এ দামে ভালো রাখা উচিত ছিলো।

5. Tecno Spark 7 Pro

(6/64 GB)

মূল্যঃ ১৪,৯৯০ 

রিভিউঃ

Tecno Spark 7 Pro এ ফোনটিতে আছে 6.6 ইঞ্চির HD+ IPS LCD স্ক্রিন। ফোনটির punch-hole রংগিন ডিজাইন এককথায় অসাধারণ। 

ফোনটির পিছনে কোয়াড মানে চারটি ক্যামেরাঃ 16+2+2 MP + QVGA। ক্যামেরার ফিচারস গুলো হলোঃ  PDAF, quad-LED flash, depth sensor, dedicated macro camera, f/1.8 aperture ইত্যাদি।

পড়ুনঃ

এ ফোনের সামনের সেলফি ক্যামেরাটি 8 MP এর। Tecno Spark 7 Pro ফোনটিতে আছে 5000 mAh এর বড় ব্যাটারি ও 10W ফার্স্ট চার্জিং সুবিধা। ফোনটির ১৪৯৯০ টাকার ভ্যারিয়েন্টে পাবেন  6 GB RAM।

ফোনটিতে আছে  2.0 GHz octa-core CPU এবং Mali G52 GPU। যা Mediatek Helio G80 (12nm) chipset দ্বারা পরিচালিত। এ ডিভাইসে 64 GB ইন্টারন্যাল স্টোরেজ এবং MicroSD slot পাবেন। এ ফোনে একটি back-mounted ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর আছে।

অন্যান্য সুবিধাঃ

 FM Radio, Dual SIM, face unlock ইত্যাদি।

ভালো দিকঃ        

✔ 5000 mAh এর বড় ব্যাটারি।    

✔ দ্রুতগতিতে চলা MediaTek Helio G80 chipset    । গেমিং খেলার জন্য ভালো।

✔  6 GB RAM    পাবেন ১৫০০০ টাকার ভ্যারিয়েন্টে।

✔ Android 11 । 

 খারাপ দিকঃ

✘  কোনো ডিসপ্লে প্রোটেকশন নেই। যেমন ধরুন, Splash-proof, Water-Proof এরকমটা নয়।

✘ ক্যামেরা গুলো নিয়ে কোনোভাবে চলা যায়। কিন্তু আহামরি না।

পার্সোনাল রেটিংস - 7.8/10

এ ফোনটি কারা নিবেন?

১) যারা ক্যামেরাতে নয়, বরং ফোনের পারফরম্যান্স, ডিজাইন এবং বেশি ফিচারসে বিশ্বাসী। 

২) সব মিলিয়ে ফোনের কোয়ালিটি Average।


4. Realme C25s

(4/64 GB)

মূল্যঃ ১৪৪৯০ টাকা।

Realme C25s ফোনটিতে আছে 6.5 inches HD+ IPS LCD স্ক্রিন। এখানে আছে একটি Full-view নরমাল ডিজাইন। এর পিছনে মোট 3টি ক্যামেরা। যথাক্রমে 48+2+2 MP সাথে আছে PDAF, LED flash, depth sensor ইত্যাদি ফিচারস। ক্যামেরা কিন্তু দারুন।

Full HD মুডে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। সামনের সেলফি ক্যামেরাটি 8 MP এর Realme C25s ফোনটুতে আছে 6000 mAh এর বিশাল ব্যাটারি। আরো আছে 18W ফার্স্ট ও reverse চার্জিং সুযোগ। এ ফোনে আছে  4 GB RAM। এটি ১৫০০০ টাকার মধ্যে ভালো ফোন ২০২১।

আরো আছে  2.0 GHz octa-core CPU, এবং Mali-G52 MC2 GPU। যেটি একটি Mediatek Helio G85 (12 nm) চিপসেট দ্বারা পরিচালিত। ১৪,৪৯০ টাকার ভ্যারিয়েন্টে 64 জিবি ইন্টারন্যাল স্টোরেজ পাবেন। ফোনের পিছনে একটি back-mounted ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর আছে।

অন্যান্য সুবিধাঃ 

Dual SIM, face unlock ইত্যাদি।

ভালো দিকঃ

✔ HD+ ডিসপ্লে। Camera খুবই ভালো পাচ্ছেন, এ বাজেটে।

✔  Helio G85 chipset, 4 GB RAM সব মিলিয়ে সম্পুর্ণ গেমিং পারফরম্যান্স পাবেন আশারাখি।

✔ 6000 mAh এর বড় ব্যাটারি। এবং 18W এর ফার্স্ট চার্জিং।     

✔ Android 11    

পার্সোনাল রেটিংস - 7.5/10

ফোনটি কারা নিবেন?

১) যারা ভালো গেমিং এক্সপেরিয়েন্স চান।

২) রিয়েলমির এই ফোনটিকে না কেনার পরামর্শ দিব না৷ বরং ফোনটির চাহিদা আছে।

৩) ২০৮ গ্রামের এই ফোনটির ডিজাইন আহামরী কিছু না। তবে ভালো পারফরম্যান্স পাবেন।


3. Realme Narzo 20

(4/64 GB)

মূল্যঃ 13,990 টাকা।

১৫,০০০ বাজেটে Realme Narzo 20 এ ফোনটাকেও নিয়ে আসলাম। Narzo সিরিজের ফোনগুলা কম দামে ভালো কোয়ালিটির ফোন ফিচারস দেয়। তবে এদের স্টক দ্রুত ফুরায় যায়। 

এ ফোনটিতে আছে 6.5 ইঞ্চির HD+ IPS LCD স্ক্রিন।  আছে Full-View minimal notch design। পিছনের ক্যামেরাটি হলো triple 48+8+2 MP সাথে আছে PDAF, dedicated macro camera, ultrawide ইত্যাদি সুবিধা। Full HD তে video recording করা যাবে।

এ ফোনের সামনের সেলফি ক্যামেরাটি 8MP এর। Realme Narzo 20  ফোনে আছে 6000 mAh এর বড় ব্যাটারি, সাথে 18W fast charging। এ ফোনটিতে ছে 4 GB RAM। আর প্রসেসর up to 2.0 GHz octa-core CPU। 

আর Mali-G52 MC2 জিপিইউ। আপনাদের বলে রাখি, মোবাইল কিনার আগে GPU ও, ফ্রেম রেট, ডিসপ্লে এগুলোও নজর দিয়ে তারপর ক্রয় করবেন।  

এ ফোনের প্রসেসর Mediatek Helio G85 (12 nm) chipset দ্বারা পরিচালিত। এডিভাইসের ২টি ভ্যারিয়েন্ট ১৩,৯৯০ টাকায়  64 GB internal storage পাবেন।  এ ফোনে আছে একটি back-mounted ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর।

অন্যান্য সুবিধাঃ

 FM Radio, Dual SIM, face unlock, OTG ইত্যাদি।

 ভালো দিকঃ

✔ ডিজাইন কিন্তু সাম্প্রতিক  ট্রেন্ডি।    

✔ সন্তোষজনক ক্যামেরা    

✔ এ দামে 6000 mAh battery সাথে আছে 18W Fast চার্জিং।    

✔  Mediatek Helio G85, 4 GB RAM সবমিলিয়ে সন্তোষজনক পারফরম্যান্স।     

✔ Android 10    

খারাপ দিকঃ

✘ Front camera কোয়ালিটি ভালো হতে পারত।

পার্সোনাল রেটিংস - 8/10

কারা এ ফোনটি নিবেন?

১) আমি যতটুকু জানি, এফোনের স্টক থাকে না। চাহিদা বেশি তাই কেনা হয়ে যায়। 

২) এ ফোনটি Realme C25s এর ঝমজ।


2. Infinix Hot 10S 

(6/128 GB)

মূল্যঃ ১৪,৯৯০ টাকা।

Infinix Hot 10S ফোনটিতে আছে 6.82 ইঞ্চির HD+ IPS LCD স্ক্রিন। এ ফোনে আছে waterdrop  ডিজাইন। পিছনে ত্রিপল ক্যামেরা  48+2 Megapixel + AI, সাথে আছে PDAF, quad-LED flash, HDR ইত্যাদি সুবিধা। এবং Full HD ভিডিও রেকর্ড করা সুযোগ।

 এ ফোনের সামনের সেলফি ক্যামেরা 8 MP এর। Infinix Hot 10S মোবাইলে আছে 6000 mAh এর বড় ব্যাটারি,পাশাপাশি 10W ফার্স্ট চার্জিং। এ প্রাইসে উচিত ছিল 18W Fast Charging দেয়ার।

১৪,৯৯৯ টাকার ভ্যারিয়েন্টে পাবেন 6 GB RAM। আর প্রসেসর হলো  2 GHz octa-core CPU। আর Mali-G52 MC2 GPU। প্রসেসরটি একটি Mediatek Helio G85 (12 nm) চিপসেট দ্বারা পরিচালিত। এ ডিভাইসে পাবেন 128 GB internal storage। তাছাড়াও এ ফোনে একটি back-mounted ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর আছে।

অন্যান্য সুবিধাঃ  FM Radio, Dual SIM, face unlock এসব।

ভালো দিকঃ

✔ 6.82 ইঞ্চির দীর্ঘ HD+ ডিসপ্লে    

✔ ক্যামেরা কোয়ালিটি ভালো। পাশাপাশি অনেক ফিচারস পাবেন।    

✔ 6000 mAh এর একটি বিশাল ব্যাটারি।    

✔ যথেস্ট ভালো performance সাথে Helio G85 chipset। যদিও MediaTak সুনাম করা প্রসেসর আনে না।

✔  6 GB RAM এবং 128 GB ড়োম

খারাপ দিকঃ

✘  display protection নাই। ভয় পাইয়েন না, নিজ থেকে ভালো দেখে গরিলা গ্লাস লাগিয়ে নিবেন। দাম ২০০ বা এর চেয়ে বেশি পড়বো।

পার্সোনাল রেটিংস - 8/10।

কারা এ ফোনটি নিবেন?

১) এ ফোনটিকে All-rounder বলে মনে হলো।

২) যারা Infinix ব্র‍্যান্ড নিয়ে দ্বিধায় আছেন, তাদের বলছি। ফোনটিকে ১৫,০০০ বাজেটের অন্য ফোনের সাথে তুলনা করলে বেশ শক্ত অবস্থানেই থাকে। গিয়ে গুগলে সার্চ করে কিছু ইংরেজি টেক রিভিউ পড়ে দেখুন।


1. Xiaomi Poco M3 :১৫ হাজার টাকার মধ্যে শাওমি  মোবাইল।

(4/64 GB)

মূল্যঃ ১৪,৯৯০ টাকা।

Xiaomi Poco M3 ফোনটিতে আছে 6.53 ইঞ্চির Full HD+ IPS LCD স্ক্রীন। আরো আছে waterdrop ডিজাইন। একটি 3rd generation এর Gorilla Glass দ্বারা সামনের ডিসপ্লে স্ক্রিন সুরক্ষিত। 

পিছনের ক্যামেরায় ত্রিপল 48+2+2 MP সাথে আছে PDAF, f/1.8 aperture, LED flash, dedicated macro camera, HDR, depth sensor ইত্যাদি সুবিধা।

Full HD তে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। সামনের সেলফি ক্যামেরাটি 8 MP এর।  Poco M3 ফোনে আছে 6000 mAh এর বড় ব্যাটারি। আরো আছে 18W এর Fast Charging support। 

ফোনের র‍্যাম 4 GB RAM। এটিতে আছে up to 2.0 GHz octa-core CPU  এর প্রসেসর। এবং Adreno 610 GPU। জিপিইউ কোয়ালিটি ভালো। ফোনটি Qualcomm এর Snapdragon 662 (11 nm) chipset দ্বারা পরিচালিত। 

সব মিলিয়ে দীর্ঘস্থায়ী প্রিমিয়াম পারফরম্যান্স পাবেন। এ ফোনে পাবেন 64 GB ইন্টারন্যাল স্টোরেজ। এখানে side-mounted ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর পাবেন।

অন্যান্য সুবিধাঃ 

FM Radio, USB type-C, Dual SIM, Infrared, Face Unlock, reverse charging, dual speakers ইত্যাদি।

ভালো দিকঃ

✔ 6.53″ এর Full HD+ ডিসপ্লে, Gorilla Glass 3G।     

✔  camera quality নিয়ে না বলাই ভালো। যথেস্ট ভালো।    

✔ 6000 mAh বিশাল ব্যাটারি, সাথে 18W fast charging।     

✔ ফোনের পারফর্মেন্স ভালো। Snapdragon 662 chipset, 4 GB RAM সব মিলিয়ে মাশাল্লাহ।    

✔ UFS 2 জাতীয় storage, আরো আছে    dedicated MicroSD slot    

✔  audio quality দারুন। একটি স্টাইলিশ side-mounted ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর পেয়ে যাবেন।    

✔ Android 10,  Android 11 এ সফটওয়্যার আপগ্রেড হয়ে গেসে মনে হয়। 

খারাপ দিকঃ

✘ Plastic বডি, যদিও এতে ঝামেলা হওয়ার তেমন কিছু নাই। শুধুমাত্র দাগ পড়ার ভয় থাকবে😁।

পার্সোনাল রেটিংস - 8.5/10

কারা এ ফোনটি নিবেন?

১) যে কেউ নিতে পারেন।

২) ফোনটির বাজেট অনুযায়ী আশানুরূপ পারফরম্যান্স পাবেন। 

৩) আপডেটেড কিনা এটা নিয়ে যদিও সন্দিহান।

পড়ুনঃ

শেষকথাঃ

আশাকরি, অনেক কিছু জানলেন। ভালো লাগলে শেয়ার করুন। আর হ্যা, আমাদের সাবস্ক্রাইব করতে বেল আইকনটিতে ক্লিক করেন তাড়াতাড়ি। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে শেষ করছি।  


Naimul Islam

নাইমুল ইসলাম Expert Bangladesh এর Founder এবং Owner। সে অবসর সময়ে ব্লগিং ও লেখালেখি করতে ভালোবাসে। একইভাবে অনলাইনে নতুন কিছু শেখা তার প্রধান শখ।

1 Comments

কমেন্ট করার মিনতি করছি। আমরা আপনার কমেন্টকে যথেস্ট মূল্য প্রদান করি। এটি আমাদের সার্ভিসের অংশ।

তবে কোনো ওয়েবসাইট লিংক প্রকাশ না করার অনুরোধ রইল।

Previous Post Next Post