জিপি টু জিপি, জিপি টু রবি ব্যালেন্স ট্রান্সফার। ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন ভুলে গেলে করণীয়।

জিপি টু জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার । পিন ভুলে গেলে কী করবেন?

ব্যালেন্স ট্রান্সফার জিপি


আসলে সব সময় ফ্লেক্সিলোড শপে গিয়ে রিচার্জ করা সম্ভব হয়না। যখন আমাদের বিকাশ অথবা রকেট একাউন্টে রিচার্জ করার জন্য পর্যাপ্ত ব্যালেন্স থাকেনা। তখন আমরা চেষ্টা করি ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য। ধরুন, কাছাকাছি কারো ফোনে ব্যালেন্স আছে। কিন্তু আপনার মোবাইলে টাকা শূন্য। তখন ব্যালেন্স ট্রান্সফার করে সহজেই নিজের একাউন্টে কিছু টাকা নিতে পারেন। আরো অনেক ক্ষেত্রেই জিপি সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের প্রয়োজন পড়ে। এই প্রসেস কিভাবে কাজ করে, এবং কিভাবে আমরা একটি গ্রামীণফোন সিম থেকে অন্য গ্রামীণফোনে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করবো। ব্যালেন্স ট্রান্সফার জিপি সম্পূর্ণ জেনে নিব। আরো আরো জানবো জিপি থেকে রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম। এছাড়া পিন কোড ভুলে গেলে করণীয় কি তাও জানা যাবে। জিপি টু জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্বন্ধে জানবো। একই ভাবে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা শিখবো। পাশাপাশি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন ভুলে গেলে করণীয় জানবো।



অনেক মানুষই এই সিস্টেমটি ভালোমতো জানে না। যার কারণে জিপি ট্রানস্ফার করতে ছোটখাটো ভুল করে ফেলে। যদি আপনি জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার রুল জানতে চাচ্ছেন, তবে অবশ্যই এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। বহুল খ্যাত মোবাইল অপারেটর কোম্পানি গ্রামীণফোন ব্যালেন্স ট্রান্সফারের নামে একটি সার্ভিস  প্রদান করেছে। এই সিস্টেমকে জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার সিস্টেম বলা হয়। এবং এ নিয়ম অনুযায়ী জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফারের থেকে প্রিপেইড ব্যালেন্স নেওয়া যায়। সকল গ্রামীণফোন রেজিস্টার্ড কাস্টমাররা ব্যালেন্স ট্রান্সফারের সুবিধা নিতে পারবে।

প্রতিটি একক সময়ে একজন ব্যক্তি ব্যালেন্স ট্রান্সফারের মাধ্যমে ৫০ থেকে ১০০ টাকা ট্রান্সফার করে নিতে পারবে। এবং এর মাসিক লিমিট ১০০০ টাকা।


একজন কাস্টমার প্রতিমাসে সর্বমোট দশবার ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবে। এবং এই সিস্টেমটি গ্রামীণফোন থেকে গ্রামীণফোন সিমের জন্য পর্যাপ্ত। আবার অন্য অপারেটরেও কাজ করে।



জিপিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম :

এই পদ্ধতিতে ট্রান্সফার করার আগে, ব্যালেন্স ট্রান্সফার গ্রামীণফোন সার্ভিসটি একটিভ করতে হবে। আর এটি করার জন্য নিম্নোক্ত রুলস গুলো পালন করে যান।



মাইজিপি এপ ব্যবহারে ব্যালেন্স ট্রান্সফার, সার্ভিস একটিভ, এমনকি পিন কোড চেঞ্জঃ

জানলে অবাক হবেন যে, মাউজিপি এপে আপনি ব্যালেন্স ট্রান্সফার, ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য রেজিস্ট্রেশন সবকিছুই মাত্র এক ক্লিকে করতে পারবেন। এর জন্য প্লে স্টোর থেকে মাইজিপি এপ টি ডাউনলোড করে, ওপেন করুন।


তারপর নিচের মতো করে ইন্টারফেসে Show More অপশনে ক্লিক করুন।

মাইজিপি এপ থেকে ব্যালেন্স ট্রান্সফার



তারপর নিচে দেখানো Balance Transfer অপশনে ক্লিক করুন।


ব্যালেন্স ট্রান্সফার জিপি



পরবর্তীতে নিচে দেখানো ইন্টারফেস চলে আসবে। সেখানে Register অপশনে ক্লিক করলে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য রেজিস্ট্রারড হয়ে যাবেন। এবং সাথে সাথে একটি পিন কোড পাবেন। ম্যাসেজ করে তারা দিবে। যে কোনো নম্বরে ব্যালেন্স ট্রান্সফারে ঐ পিন কোড লাগবে। আপনাকে পিন কোড টি মনে রাখতে হবে। জিপি টু জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম জানুন।


জিপি থেকে রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার



পিন কোড চেঞ্জঃ পিন কোড চেঞ্জ করার জন্য নিচের চিত্রে দেখানো অপশনে ক্লিক করবেন

জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফারে পিন কোড ভুলে গেলে





জিপিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করুন (কোড ডায়ালে)


১) সার্ভিস রেজিস্ট্রেশনঃ আপনি চাইলে তিনটি ভিন্ন মেথড এর মাধ্যমে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন। জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার সার্ভিসের রেজিস্টার করে নেওয়ার জন্য আপনাকে *121*15003# এই নম্বরটি ডায়াল করতে হবে। এবং 1 চাপতে হবে। এর মধ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবে। অর্থাৎ কমপ্লিট হয়ে যাবে। 


২) ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার পদ্ধতিঃ আপনি ওই একই নম্বর ডায়াল করে  2 প্রেস করতে হবে। পরবর্তীতে আপনাকে রিসিভার ফোন নম্বরটি লিখতে হবে। লিখে জমা দিতে হবে। এবং যত অ্যামাউন্ট পাঠাতে চান তারপর আপনাকে সেটি সেট করে দিতে হবে। অন্যান্য নিয়মাবলী পালন করে আপনি সহজেই ট্রানস্ফার করতে পারবেন। এই মেথড জিপি টু জিপির ক্ষেত্রে কাজে লাগানো যায়।

প্রতিবারে আপনি দশ থেকে একশ টাকার মধ্যে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারেন। এখানে যদি আপনি কাউকে 50 টাকা ট্রান্সফারের করেন তবে ওই রিসিভার 50 টাকাই পাবে। অর্থাৎ একটি টাকাও চার্জ কাটা যাবে না। এরকম মাসিক সর্বোচ্চ 10 বার একজন চাইলে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবে। এখানে শুধুমাত্র প্রিপেইড গ্রাহকগণ ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবে। এবং সে ট্রানস্ফার চাইলে প্রিপেইড এবং পোস্টপেইড উভয় গ্রাহকই পাবে।জিপি টু জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা খুবই সহজ।



এসএমএস এর মাধ্যমে জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফারঃ

১। ফোনের মেসেজ অপশনে যান। এবং সেখানে নতুন একটি মেসেজ তৈরি করুন।  

২। নিচের মত করে মেসেজ লিখুন। এবং সেটি এই নম্বরে পাঠিয়ে দিন এবং রীতিমত আপনার ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্পন্ন হয়ে যাবে।

BTR (স্পেস দিন) আপনার পিন নম্বর (স্পেস) যার কাছে ট্রান্সফার করবেন তার নম্বর (Space) টাকার পরিমাণ।

উদাহরণঃ BTR 1231 01756673232 50



মাই জিপি অ্যাপ এর মাধ্যমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করে নিন।

প্রথমত মাই জিপি তে যান। সেখানে অপশন গুলোতে প্রবেশ করুন। এবং সেখান থেকে ব্যালেন্স ট্রান্সফার অপশনটি নিয়ে নিন। পরবর্তীতে যে ফোনে আপনি পাঠাবেন তার ফোন নম্বরটি লিখে দিন। এবং কত এমাউন্ট পারতে চাচ্ছেন সেটা লিখে দিবেন। এবং সেখানে কনফার্ম করে নিলে সরাসরি ব্যালেন্স ট্রান্সফার হয়ে যাবে।তো উপরে আমি এরকম ইন্টারফেস দেখিয়েছিলাম। নিচের চিত্রে দেখুন। ওখানে আমি প্রথমে রিসিভার নম্বরটি লিখেছি। পরবর্তীতে লিখেছি এমাউন্ট। এবং পিন কোডটি দিলেই পাঠানো যায়। মাই জিপি এপ ব্যবহারে জিপি টু জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার অনেক সহজ। জিপি টু রবি ব্যালেন্স ট্রান্সফারও যথেস্ট সহজেই করা যায়। ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন ভুলে গেলে কাস্টমার সার্ভিসও নেয় যায়।

অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার



 

কিভাবে জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করবেনঃ

আসলে জিপি থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা সম্ভব। এবং এই ব্যালেন্স ট্রান্সফার অনেকটাই স্বাচ্ছন্দপূর্ণ। তো বেশীরভাগ মোবাইল সার্ভিস আছে। তো আপনি কি গ্রামীণফোন থেকে অন্যান্য অপারেটর রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংকে ট্রানস্ফার করতে চাচ্ছেন? তো আমরা জানব যে জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার কিভাবে রবিতে করা সম্ভব।



জিপি থেকে রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়মঃ

এছাড়াও সেই ব্যালেন্স ট্রান্সফার রবি থেকে গ্রামীণফোন সিমে করা সম্ভব। তো গ্রামীণফোন থেকে রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুনঃ

১। তার পূর্বে আপনাকে রবি'র ব্যালেন্স ট্রান্সফার সিস্টেম এ রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে না।

২। তো এর জন্য আগের মতোই করে গ্রামীণফোন যেভাবে আমরা ট্রানস্ফার করতাম, ঐটি করতে হবে। শুধুমাত্র এমাউন্টের টাকাটি লিখে দেওয়ার পরে আপনাকে নিম্নোক্ত নম্বরে এমাউন্টটি পাঠাতে হবে। যেখানে এটি হচ্ছে রিসিভার নম্বর।

 1212018XXXXXXXX যেখানে (018XXXXXXX) রিসিভারে রবি নম্বর।


উপরোক্ত নম্বরটি মাইজিপিতে লিখে এমাউন্ট লিখে পিন কোড না দিলেও সেটি ট্রান্সফার হবে।এর মধ্য দিয়ে রবি সিমে অটোমেটিক্যালি ট্রান্সফার সিস্টেম অন হয়ে যাবে। প্রথমবার ট্রান্স্ক্রিপশন করে নেওয়ার পরে আপনি একটি পিন কোড পাবেন। প্রথমবার ট্রান্সস্ক্রিপশন করার পর পুনরায় ট্রান্সফার করতে পিনকোড টির প্রয়োজন পড়বে।


যদি আপনি পিনকোড টিকে ডিজেবল করতে চান,  তাহলে এসএমএস সেকশনে গিয়ে OFF এই লেখাটি টাইপ করে 1210 এই নম্বরে পাঠিয়ে দিন। এভাবে  জিপি থেকে রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে হয়।


ব্যালেন্স ট্রান্সফারে বিভিন্ন শর্তাদি:

১। এখানে যিনি টাকা পাঠাবেন, তার ২ টাকা চার্জ কাটা যাবে। 

২। আবার যিনি রিসিভ করবেন, তারও ২ টাকা কাটা যাবে। জিপি টু জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফারে কোনো চার্জ কাটে না। তবে জিপি থেকে অন্যান্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফারে চার্জ কাটে।

৩। আরো বিস্তারিত জানতে আমি বলি কি ১২৩ নম্বরে ফোন দিন। অথবা HELP লিখে 1210 নম্বরে পাঠান। তারাই আপনাকে বিস্তারিত সাহায্য করবে। 

 

জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিনকোড যদি ভুলে জান, তাহলে এই বিষয়টিকে ভাল করে পড়ুন। যদি আপনি জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন সম্বন্ধে জানতে চান। এবং এটি ভুলে গেলে করণীয় কি? সম্বন্ধে জানতে চান, তবে সম্পূর্ণ গাইডলাইন ফলো করুন।


পড়ুনঃ 

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ 2021 (২৩টি অ্যাপ)

কুইজ খেলে টাকা ইনকাম ২০২১(15 টি এপ)




ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন নম্বর পরিবর্তনের জন্য করণীয়ঃ

১) ডায়াল *121*1500#

২) ইনপুট করুন 3

৩) পরবর্তীতে পুরাতন পিন নম্বরটি ইনপুট করুন।

৪) আবার নতুন পিন নম্বরটি পরবর্তীতে ইনপুট করুন। যেটি আপনি রিসেট করতে চাচ্ছেন।

৫) যে নতুন নম্বর তিন নম্বর দিয়েছেন সেটি আবার কনফার্ম করুন।



অথবা, 

১। প্রথমত এসএমএস অপশন এ যান। এবং একটি নতুন মেসেজ সিলেক্ট করুন। সেখানে মেসেজ টাইপ করুন নিচের ফরমেটে:

CPIN (একটি স্পেস দিন) পুরাতন কোনো পিন (স্পেস) নতুন পিন নম্বর (স্পেস) নতুন পিন কনফার্ম 1000 এই নম্বরে মেসেজটি পাঠিয়ে দিন। আপনার পিনকোড পরিবর্তন হয়ে যাবে। তো মেসেজটির একটি উদাহরণ হলোঃ 

CPIN 4567 4204 4204




জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন ভুলে গেলে করণীয় কি?

জিপি পিন কোড রিকভার করার জন্য, সরাসরি জিপি কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। তারা এ ব্যাপারে আপনাকে অবশ্যই সহযোগিতা করবে। তাদের কাস্টমার সার্ভিস পাওয়ার জন্য মাই জিপি অ্যাপ এ যোগাযোগ করতে পারেন। অথবা জিপি ওয়েবসাইট আছে। বা আশেপাশে যদি কোন জিপি কাস্টমার সেন্টার থাকে, গ্রামীণফোন সেন্টার থাকে। তবে সেখান থেকেও করা সম্ভব। ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন ভুলে গেলে সমস্যা নেই। এর প্রতিকার পাওয়া সম্ভব।



গ্রামীণফোনের ব্যালেন্স ট্রান্সফার সিস্টেম চালু করার জন্য,


১)আপনাকে গ্রামীণফোন সিমটি ছয় মাস ধরে ব্যবহার করতে হবে। 

২)এবং 300 টাকা মোট রিচার্জ করে নিতে হবে। অর্থাৎ এখন পর্যন্ত যত রিচার্জ করিয়েছেন তার পরিমাণ যদি 300 উপরে হয়, বা 300 টাকা হয়। তবে আপনি সেই ব্যালেন্স ট্রান্সফার সিস্টেম টি গ্রহন করতে পারবেন। তা না হলে এটি চালু করা সম্ভব না।


একজন কাস্টোমার চাইলে 50 থেকে 100 টাকা অবদি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবে। এবং প্রতিমাসে ট্রান্সফারের অ্যামাউন্ট হল 1000 টাকা। অর্থাৎ এক মাসেই আপনি সর্বোচ্চ 1,000 টাকা পর্যন্ত ট্রান্সফার করতে পারবেন। অর্থাৎ এক মাসে আপনি যত ট্রানস্ফার করিয়েছেন তার মোট পরিমাণ 1000 টাকা হতে হবে। আর বেশি হতে পারবে না।


এবং মাসে যে কেউ দশবার ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবে। এখানে কোনরকম কোনরকম এক্সট্রা চার্জ লাগবে না।



শেষকথাঃ

গ্রামীণফোন আপনাকে এক অসাধারণ সুযোগ করে দিয়েছে। ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য। কাজেই এবিষয়ে জেনে রাখা ভালো। যখন দরকার পড়বে তখন অবশ্যই এটি কাজে আসবে। ভালো থাকবেন। আশাকরি ভালো জানতে পারলেন। ধন্যবাদ।জিপি টু জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার, জিপি থেকে রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার সম্পুর্ণ জানলাম।


Naimul Islam

নাইমুল ইসলাম Expert Bangladesh এর Founder এবং Owner। সে অবসর সময়ে ব্লগিং ও লেখালেখি করতে ভালোবাসে। একইভাবে অনলাইনে নতুন কিছু শেখা তার প্রধান শখ।

3 Comments

কমেন্ট করার মিনতি করছি। আমরা আপনার কমেন্টকে যথেস্ট মূল্য প্রদান করি। এটি আমাদের সার্ভিসের অংশ।

তবে কোনো ওয়েবসাইট লিংক প্রকাশ না করার অনুরোধ রইল।

  1. জিপি থেকে রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের মেথডটা দয়া করে আরেকটু ক্লিয়ার করে দিলে উপকৃত হতাম।

    ReplyDelete
    Replies
    1. জিপি থেকে রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার মাইজিপিতে করুন। আমি ব্লগে লিখেছি, কিভাবে মাইজিপিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে হয়। রিসিভার নম্বরটি শুধু 1212018XXXXXXXX এরকম দেবেন এখানে 018 এর পর থেকে রবি নম্বর। প্রথমবার একেবারে কম ব্যালেন্স পাঠান। ব্যালেন্স ট্রান্সফার হলে যে রবিতে ব্যালেন্স পাবেন, সেটায় রেজিঃ অটোম্যাটিকালি হবে। কিন্তু পরে আবার জিপিতে ট্রান্সফার করতে গেলে পিন কোড ব্যবহার করতে হবে। যেটা প্রথমবার ট্রান্সফার শেষে আপনাকে ম্যাসেজের মাধ্যমে দেয়া হবে।

      Delete
Previous Post Next Post